দাতা সংস্থার অর্থ আত্মসাৎ, সৈয়দপুরে ভূয়া এনজিও ও নারী সংস্থা

বাংলাপ্রেস ডেস্ক
১ জুন, ২০১৮

এম আর আলী টুটুল, সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি: সৈয়দপুরে ভূয়া এনজিও, নারী উন্নয়ন সংস্থার কার্য্যক্রম দেখিয়ে দাতা সংস্থার কাছে থেকে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে প্রতারক চক্র। অবহেলিত দরিদ্র জনগোষ্ঠির উন্নয়নের কথা বলে এনজিও বা নারী উন্নয়ন সংস্থা পরিচালনার নামে বিদেশী দাতা সংস্থার কাছ থেকে কোটি কোটি টাকা অনুদান নিয়ে তা আত্মসাৎ করছে।বাস্তব চিত্রে তাদের কোন কার্য্যক্রম নেই। অন্যের কার্য্যক্রমের সাথে সু কৌশলে নিজেদের সংস্থার কার্য্যক্রম দাবি করে ফাটো সেশন করে ওই সব ছবি অফিসে ঝুলিয়ে রাখে এবং নির্ধারিত দাতা সংস্থার কাছে পাঠিয়ে দেয়। বাংলাদেশের অনেক মানুষ এখনও দারিদ্র সীমার নিচে বাস করে। দরিদ্র অবহেলিত মানুষকে পুঁজি করে এনজিও নারী উন্নয়ন সংস্থার নামে ঐ সব প্রতারক চক্র বিদেশি সংস্থার সরলতার সুযোগ নিয়ে কোটি কোটি টাকা আত্মসাৎ করছে। সম্প্রতি ৩১ মে অঞ্জলী সংস্থার ব্যানারে হরিজন সম্প্রদায়ের কিছু পুরুষ-মহিলা ভাড়া করে নিয়ে মানববন্ধন করে। ঐ মানববন্ধনে সংস্থার কোন ব্যক্তিই উপস্থিত ছিল না।

মানববন্ধনের ব্যায় দেখানো হয় দাতা সংস্থাকে প্রায় ১০ লক্ষ টাকা। অঞ্জলী সংস্থার নিজস্ব কোন অফিস নেই। সংস্থার পরিচালকের বাড়ীর সামনে সাইন বোর্ড ঝুলিয়ে ভূয়া অফিস দেখিয়ে দাতা সংস্থার কাছ থেকে অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছে। অদৌ হরিজন সম্প্রদায় ঐ সংস্থার কাছ থেকে কোন সুবিধা ভোগ করেনি। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক হরিজন সম্প্রদায়ের এক ব্যক্তি জানান, ২ জন মহিলা আমাদের কাছে এসে বলেন তোমাদের ন্যায্য অধিকার আদায়ের জন্য অঞ্জলী সংস্থা কাজ করছে। এই জন্য আগামী কাল ১ মে মানববন্ধনে কিছু লোক লাগবে বিনিময়ে তোমাদের ১শ টাকা করে দিব। আমরা ভাবলাম হয়তো হবে এই জন্য ১৫/২০ জন পুরুষ মহিলা গিয়ে ছিলাম। তাদের অফিস কোথায় আমরা জানি না। এমনই আরেকটি এনজিও’র নামে বিদেশ থেকে অর্থ এনে বহুতল বাড়ী করে বসবাস করছে এবং ভূয়া কার্য্যক্রম পরিচালনা করছে এক প্রতারক। দাতা সংস্থার অনুদানের টাকা দিয়ে দাদন ব্যবসা সহ ক্ষুদ্র গার্মেন্টস এর ব্যবসা করছে। গার্মেন্টস শ্রমিকদের সহায়তা করছে বলে দাতা সংস্থার কাছ থেকে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে ওই প্রতারক। দরিদ্র অবহেলিত মানুষদের উন্নয়নের কথা বলে ঐসব প্রতারক চক্র টাকা এনে নিজেরা লাভবান হচ্ছে। সচেতন মহল ঐ সব প্রতারক চক্রের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহনে প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি কামনা করেছেন।