Home প্রবাস আগাছা সাফ করে কানেকটিকাটের বাক-কে ঠেলে সাজানোর দাবি

আগাছা সাফ করে কানেকটিকাটের বাক-কে ঠেলে সাজানোর দাবি

by bnbanglapress
A+A-
Reset

কানেকটিকাটের প্রবাসীদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য দিচ্ছেন বাক-এর সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আনোয়ার হোসেন হিমু

হার্টফোর্ড প্রতিনিধি: আগাছা সাফ করে কানেকটিকাটের ঐতিহ্যবাহী বাংলাদেশি আমেরিকান অ্যাসোসিয়েশন অব কানেকটিকাট(বাক)-কে ঠেলে সাজিয়ে প্রবাসীদের কল্যাণে কাজ করার আহবান জানিয়েছেন বাক-এর সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আনোয়ার হোসেন হিমু। গত শনিবার ম্যানচেষ্টারের একটি রেস্তোরাঁয় অনুষ্ঠিত এক জরুরি সভায় তিনি এ কথা উল্লেখ করেন।
তিনি বলেন,বাক-কে আর কখনোই কোন ব্যক্তি বা কারো ব্যবসায়িক স্বার্থে ব্যবহার করতে দেওয়া হবে না।সংগঠনটিকে অচিরেই ঠেলে সাজিয়ে নতুন নেতৃত্বের মাধ্যমে সংগঠনটিকে সচল করার আহবান জানান তিনি। দীর্ঘদিন ধরে বাক-এর সকল কার্যক্রম বন্ধ থাকায় কানেকটিকাট প্রবাসীদের পক্ষ থেকে তীব্র নিন্দা জানান তিনি।
গত বছর অর্থাৎ ২০১৭ সালে বাক এর দুই গ্রুপ হেলাল-আজম ও কামাল-হুমায়ুন নেতৃত্বের লড়াই করতে গিয়ে কানেকটিকাটের সাধারন প্রবাসীদের নিয়ে ভোট ও পাল্টা ভোট খেলায় যারা মেতে উঠেছিলেন ঐসব লোকদের চিহ্নিত করে আগামী নির্বাচনে তাদেরকে বয়কট করার আহবান জানিয়ে তিনি জানান তাদের সেই নেতৃত্বের স্বপ্ন আর কখনোই পূরণ হাবার নয়।
হিমু দূঃখ প্রকাশ করে বলেন, ছয় মাসেরও অধিক সময় পার হলেও তথা কথিত অস্থায়ী কমিটি নীরব ভূমিকা পালন করেই চলেছেন। সাম্প্রতি আমার একটি ভিডিও বার্তা পাবার পর নির্বাচন ঘোষনা করা হয়েছে বলে তিনি জানতে পারেছেন, তিনি কোন ইমেইল পাননি এবং অস্থায়ী কমিটির কেউ এ বিষয়ে তাকে অব্বহিত করেননি বলে তিনি উল্লেখ করেন।


তিনি আরও বলেন, আমার একটিই কথা সেটা হলো কানেকটিকাটের প্রবাসীদের স্বপ্নের বাক-কে আমরা আর কোন বিভক্ত দেখতে চাই না। সকলেই ঐক্যবদ্ধ হয়ে বাংলাদেশি প্রবাসী বাংলাদেশিদের কল্যাণে কাজ করতে হবে। একই সঙ্গে আমাদের নতুন প্রজন্মকে বাংলা সংস্কৃতির সঙ্গে পরিচিতি করে তুলতে হবে। এটাই হবে আমাদের সকলের সার্থকতা। পারিবারিক, রাজনৈতিক কিংবা ও কারো ব্যবসায়িক দ্বন্দ্বের কারণে বাক-কে দ্বিধা বিভক্ত হতে দেবো না। প্র্যয়োজনে পাল্টা প্রতিরোধ গড়ে তোলা হবে।


সভায় উপস্থিত মোবারক নওশাদ বলেন, প্রবাসীদের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় যে উদ্দেশ্য নিয়ে বাংলাদেশি আমেরিকান অ্যাসোসিয়েশন অব কানেকটিকাট (বাক) এর জন্ম হয়েছিল তা পুরোপুরি প্রতিষ্ঠা পায়নি।শুধু পহেলা বৈশাখ পালন আর চিত্ত বিনোদনের জন্য কোন সামাজিক সংগঠন গড়ে উঠে না। বাক–এর জন্য মূল উদ্দেশ্যও এটা ছিল না। কতিপয় ব্যক্তির এক ঘেয়েমির কারণে নতুন প্রজন্ম অনেক কিছু থেকেই বঞ্চিত হয়ে আসছে। তিনি যুক্তরাষ্ট্রে ভারতীয় নাগরিকদের উদাহরন দিয়ে বলেন তারা চাকুরির ক্ষেতে একে অপরকে ভীষন সাহায্য করে থাকেন। কিন্তু আমাদের বাংলাদেশি কমিউনিটিতে এই চর্চা নেই। বাক-এর কর্মকর্তারা কাউকে চাকুরি দিতে না পারুক অন্তত কানেকটিকাটে আসা নতুন মানুষদের রাস্তা দেখিয়ে দিতে পারেন।
তিনি বলেন, আমাদের কমিউনিটির ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ারসহ অনেক পেশাদার লোক আছেন তাদের সহায়তায় স্কুল ও কলেজ পড়ুয়া ছেলেমেয়েদেরকে ভাল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি বা চাকুরির সুযোগ করে দিতে পারেন।তাহলেই আমাদের এই সামাজিক সংগঠনটি একটি পূর্ণাঙ্গ সংগঠনে পরিনিত হবে। আগামীতে যারা বাক-এর হাল ধরবেন তারা যেন এসব বিষয়ে গুরুত্ব দেন। সভায় স্থানীয় বেশ কিছু গন্যমাণ্য ব্যক্তি উপস্রথিত ছিলেন।

You may also like

Leave a Comment

কানেকটিকাট, যুক্তরাষ্ট্র থেকে প্রকাশিত বৃহত্তম বাংলা অনলাইন সংবাদপত্র

ফোন: +১-৮৬০-৯৭০-৭৫৭৫   ইমেইল: [email protected]
স্বত্ব © ২০১৫-২০২৩ বাংলা প্রেস | সম্পাদক ও প্রকাশক: ছাবেদ সাথী