মৃত্যুর আগেই কুলখানির আয়োজন !

বাংলাপ্রেস ডেস্ক
১৩ মার্চ, ২০২১

ফরিদপুর প্রতিনিধি : সাধারণত কোনো মুসলমান মারা গেলে মিলাদ বা কুলখানির আয়োজন করেন স্বজনরা। কিন্তু মৃত্যুর আগেই ২৫০০ মানুষকে দাওয়াত দিয়ে খাওয়ালেন ৮০ বছরের বৃদ্ধ হাজী মো: আবুল কাশেম মোল্যা।

৮০ বছরের এ বৃদ্ধের বাড়ি ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলার রূপাপাত ইউনিয়নের কুমড়োইল গ্রামে। শনিবার নিজ বাড়িতে ভূরিভোজের আয়োজন করেন হাজী মো. আবুল কাশেম মোল্যা। দিনব্যাপী ভূরিভোজে গ্রামের মানুষের উপস্থিতিতে মুখর হয়ে ওঠে কামতাল গ্রাম।

শুক্রবার রাত থেকে শুরু হয় গরু জবাইসহ রান্না-বান্নার কাজ। শনিবার ১২টায় মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করা হয়। মিলাদে অংশ নেন মসজিদের ইমাম। মোনাজাতের পর শুরু হয় খাওয়া-দাওয়া, যা বিকেল চারটা পর্যন্ত চলে।

হাজী মো. আবুল কাশেম মোল্যার চার ছেলে ও তিন মেয়ে। পুত্রবধূ ও নাতি-নাতনিদের নিয়ে বাড়িতে থাকেন। আরো আগেই ছেলে-মেয়েদের মাঝে সম্পত্তি ভাগ করে দেন তিনি।

বড় ছেলে মো. মনিরুজ্জামান দ্বিতীয় ছেলে ওহিদুজ্জামান ফিরোজ, তৃতীয় ছেলে মো. লিটন মিয়া ও চতুর্থ ছেলে কায়ুমুজ্জামান।

বৃদ্ধ হাজী মো. আবুল কাশেম মোল্যা আমন্ত্রিত অতিথিদের আপ্যায়নের ব্যয়ভার তিনি নিজেই বহন করেন।হাজী মো. আবুল কাশেম মোল্যা বলেন, মৃত্যুর আগেই প্রতিবেশী ও আশপাশের গ্রামের মানুষকে দাওয়াত করে খাওয়ানোর ইচ্ছা ছিল। অবশেষে সেই ইচ্ছা আল্লাহ পূরণ করেছেন।