কানেকটিকাটে বাক নির্বাচন
পুলিশ স্টেশন থেকে ব্যালট বাক্স ফেরত না পাওয়ায় আরও একদিন পেছালো ভোট গণনা

বাংলাপ্রেস ডেস্ক
১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক: যুক্তরাষ্ট্রের কানেকটিকাট অঙ্গরাজ্যের বাংলাদেশিদের অন্যতম সংগঠন বাংলাদেশি আমেরিকান অ্যাসোসিয়েশন অব কানেকটিকাট (বাক)-এর নির্বাচন কমিশনের গাফিলতি ও খামখেয়ালিপনার কারণে ১২ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত ভোটগ্রহণের অসমাপ্ত ভোট গণনা আরও একদিন পিছিয়েছে। সোমবার (১৩ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় অসমাপ্ত ভোট গণনার কথা ছিল। পুলিশ স্টেশনে জমা রাখা ব্যালট বাক্স ফেরত না পাওয়ায় ভোট গণনা আরও একদিন পিছিয়েছে বলে জানা গেছে।
গত রোববার (১২ সেপ্টেম্বর) দিনব্যাপী চারটি ভোটকেন্দ্রে বাক-এর দ্বিবার্ষিক ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। প্রায় সাড়ে হাজার ভোটারের মধ্যে এবারে মাত্র ১ হাজার ৫শত ৭৩টি জন ভোট প্রদান করেন। রোববার সন্ধ্যা থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত ভোট গণনা চলার পর হঠাৎ করেই অজ্ঞাত কারণে ভোট গণনা স্থগিত করেন নির্বাচন কমিশন। ঠিক কি কারণে ভোট গণনা স্থগিত করা হয়েছে এর সঠিক কারণ বা ব্যাখ্যা দিতে পারেননি নির্বাচন কমিশনের প্রধান কাজী বেলাল শাজাহান। ম্যানচেস্টার পুলিশ স্টেশনে জমাকৃত ব্যালট বাক্স ফেরতের জন্য আজ সোমবার ফেরত নেওয়ার জন্য বিলম্ব পুলিশ স্টেশনে পৌঁছালে তা ফের নেওয়া সম্ভব হয়নি। ফলে আগামীকাল মঙ্গলবার (১৪ সেপ্টেম্বর) সঠিক সময়ে পুলিশ স্টেশনে পৌঁছাতে পারলে ব্যালট বাক্স উদ্ধারের পর অসমাপ্ত ভোট গণনা করা হবে।
রোববার মধ্যরাত পর্যন্ত গণনাকৃত ভোটে স্টামফোর্ডে কেন্দ্রে নুরুল-হুমায়ুন পরিষদ এগিয়ে আছেন। অপরদিকে ব্রিজপোর্ট ও ওয়ালিংফোর্ড কেন্দ্রে তামিম-মামুন পরিষদ এগিয়ে আছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। এমতাবস্থায় হঠাৎ করে এক অজ্ঞাত কারণে মধ্যরাতের পর ভোট গণনা স্থগিত করেন নির্বাচন কমিশন। এ সিদ্ধান্তের পর ব্যালট বাক্স জনৈক নির্বাচনের কমিশনের বাসায় নিয়ে যাবার উদ্যোগ গ্রহণ করেন। প্রতিপক্ষের প্রতিবাদের মুখে তা বন্ধ হয়। অবশেষে উভয় পক্ষের সিদ্ধান্ত মোতাবেক ম্যানচেস্টার পুলিশ স্টেশনে অগণনাকৃত বাক্সগুলো রাখা হয়। সোমবার ১৩ সেপ্টেম্বর সকালে মার্কিন সংবাদমাধ্যম বাংলা প্রেস-এর পক্ষ থেকে টেলিফোনে নির্বাচন কমিশনের প্রধান কাজী বেলাল শাজাহানের কাছে বাক-এর নির্বাচনে ভোট গণনা স্থগিতের কারণ কি? জানতে চাওয়া হলে তিনি এক কথায় বলেন ফলাফল ঘোষনা হলে সাবাই জানতো। কি কারণে ভোট গণনা স্থগিত হয়েছে এটা আমাকে (গণমাধ্যম)কে বলা যাবে না বলেই ফোন রেখে দেন। আর কথা লম্বা করতে চাননি। আবার কখন পুনঃরায় ভোট গণনা শুরু হবে তা জানা যায়নি। ভোট স্থগিতের পর ভোটারদের উদ্দেশ্যে তারা ইমেইলে বা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কোন বক্তব্যও দেননি।
এদিকে (বাক)-এর নির্বাচন কমিশন হঠাৎ সিদ্ধান্তের বিষয়টি নিয়ে অনেকেই বিরুপ মন্তব্যও করেছেন। নির্বাচন কমিশনের নিরপেক্ষতা নিয়ে সন্দেহ দেখা দিয়েছে প্রবাসীদের মাঝে। আপত্তি স্বত্বেও চট্টগ্রামের প্রবাসী প্রার্থীদের সুবিধার্থে চট্টগ্রামের প্রবাসী নির্বাচন কমিশনকে চট্টগ্রামবাসী অধুষ্যিত স্টামফোর্ডে নিয়োগ দেন নির্বাচন কমিশন। সুকৌশলে ভোট গণনার ক্ষেত্রেও ওই কেন্দ্রের ভোট গণনাও শুরু করেন আগে।
উল্লেখ্য ১৩ মে ২০১৭ সালের বাংলাদেশি আমেরিকান এসোসিয়েশন অব কানেকটিকাট (বাক)-এর দ্বিবার্ষিক নির্বাচনে কাজী বেলাল শাজাহান কমিশনারের দায়িত্ব পাবার পর প্রধান নির্বাচন কমিশনার ড. গোলাম চৌধুরী ইকবালের বিরুদ্ধে অস্বচ্ছতার অভিযোগ এনে পদত্যাগ করেছিলেন। পদত্যাগের পরও তিনি কীভাবে নির্বাচন কমিশনের দায়িত্ব পেলেন তা সাধারন ভোটারদের অনেকেরই প্রশ্ন। এবারে তার নেতৃত্বাধীন নির্বাচনে কতটুকু স্বচ্ছতা ছিল তা নিয়েও কথা উঠেছে।

বিপি।এসএম