ফলো আপ
নিউ ইয়র্কে একটি শিল্পী পরিবারকে ধ্বংসের পরিকল্পনা করেছিল প্রতারক শাহনাওয়াজ

বাংলাপ্রেস ডেস্ক
১৪ জানুয়ারী, ২০২২

ছাবেদ সাথী : নিজের অপরাধকে ঢাকতে একটি শিল্পী পরিবারকে ধ্বংস করার পরিকল্পনা করেছিল যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কে প্রবাসী বাংলাদেশি হোম কেয়ার ব্যবসায়ী শাহনাওয়াজ। ব্যবসার অংশীদার যন্ত্রশিল্পী জনপ্রিয় যন্ত্রশিল্পী পার্থ গুপ্তকে ঘায়েল করতে তার ফেসবুকের ছবিতে ফটোশপের মাধ্যমে আগ্নেয়াস্ত্র বসিয়ে তাকে অস্ত্র মামলায় ফাঁসাতে চেয়েছিলেন কমিউনিটি প্রতারক ব্যবসায়ী শাহনাওয়াজ। অবশেষে তার সেই পরিকল্পনা ভেস্তে গেছে। নিউ ইয়র্কের একটি ফৌজদারি আদালতে তার পুর্বপরিকল্পিত এ সাজানো মামলাটি গত বুধবার (১২ জানুয়ারি) সকাল সাড়ে ৯টায় ভার্চুয়ালি প্রথম শুনানিতেই খারিজ করেছেন নিউ ইয়র্কের কুইন্স কাউন্টি ফৌজদারি আদালতের বিজ্ঞ বিচারক মেরি এল বেজারানো।
গত বছর ১০ সেপ্টেম্বর পার্থ গুপ্তের বিরুদ্ধে শাহনাওয়াজের এ ভুয়া মামলাটি দায়ের করার পর থেকে স্ত্রী-সন্তানদের নিয়ে ভীষন দুঃশ্চিন্তায় দিন কাটিয়েছেন পার্থ। তিনি স্ত্রী, ২ ছেলে ও বৃদ্ধা মাকে নিয়ে নিউ ইয়র্কের জামাইকায় দীর্ঘদিন ধরে বসবাস করছেন। যৌথ ব্যবসার খাতিরে শাহনাওয়াজ তার স্ত্রী নিয়ে তাদের বাসায় অবাধে যাতায়াত করতো। শাহনাওয়াজের স্ত্রী আমেনা ওরফে রানো নাওয়াজ গানও শিখতো পার্থ’র কাছে। পার্থ’র বউয়ের হাতের রান্না খেয়ে ঢেঁকুর তুলতেন শাহনাওয়াজ-রানো। পার্থ’র মাকে কাকী বলে ডেকে ঘনিষ্ট হয়ে ব্যবসা সংক্রান্ত কাজের অজুহাতে তার মোটা অংকের অর্থ ধার করেছিলেন শাহনাওয়াজ। পরবর্তীতে পে-চেক প্রোটেকশন প্রোগ্রাম (পিপিপি)’র লোনের অর্থের হিসাব চাওয়ায় পার্থ’র সাথে দ্বন্দ্ব দেখা দেয়। পরে তাকে অস্ত্র মামলায় ফাঁসিয়ে তার পরিবারকে ধ্বংসের পরিকল্পনা করেন প্রতারক শাহনাওয়াজ। তবে অনেকেই বলছেন এ পরিকল্পনাটি ছিল তার স্ত্রী রানো নাওয়াজের।

আরও পড়ুন: নিউ ইয়র্কে প্রবাসী শাহনাওয়াজের ভুয়া মামলায় যন্ত্রশিল্পী পার্থ গুপ্ত নির্দোষ
বেশ কয়েক বছর ধরে শাহনাওয়াজ ও পার্থ গুপ্ত দু’জনেই একত্রে হোম কেয়ার ব্যবসা করছিলেন। গত বছর যুক্তরাষ্ট্রে করোনা মহামারি ভয়াবহ আকার ধারন করায় কেন্দ্রিয় (ফেডারেল) সরকার কর্তৃক ক্ষুদ্রসহ বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে পে-চেক প্রোটেকশন প্রোগ্রাম (পিপিপি) ঋণ প্রদানের ঘোষনা দেন। শাহনাওয়াজ তার দু’টি হোম কেয়ার (বেঙ্গল হোম কেয়ার ইঙ্ক ও গোল্ডেন এজ হোম কেয়ার)ব্যবসায় ১৪০ জন কর্মাচারি দেখিয়ে প্রতারণার মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রিয় সরকারের কাছ থেকে প্রায় ৫ লাখ ২৪ হাজার ৭২৯ ডলার (বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৪ কোটি ৪৬ লাখ ১ হাজার ৯৬৫ টাকা) পে-চেক প্রোটেকশন প্রোগ্রাম (পিপিপি) ঋণ গ্রহণ করেন। প্রাপ্ত পে-চেক প্রোটেকশন প্রোগ্রাম (পিপিপি) ঋণের (মওকুফযোগ্য) তথ্য ব্যবসায়ী অংশীদার পার্থ গুপ্তের কাছে গোপন রেখে প্রতারণার আশ্রয় নেন। ঋণের সঠিক পরিমাণ ও হিসাব চাওয়ায় তিনি উক্ত অংশীদারকে হয়রানির উদ্দেশ্যে পার্থ গুপ্তের ফেসবুকের ছবিতে ফটোশপের মাধ্যমে আগ্নেয়াস্ত্র বসিয়ে পুলিশের কাছে জীবন নাশের হুমকির অভিযোগ করেন ব্যবসায়ী শাহনাওয়াজ।
জানা যায়, গত বছর ১০ সেপ্টেম্বর রাত ১টা ২৯ মিনিটে নিউ ইয়র্ক সিটি পুলিশ ডিপার্টমেন্টের জ্যাকসন হাইটসের নর্দার্ন ব্লুভার্ড-১১৫ এলাকার পুলিশের কাছে গিয়ে শাহনাওয়াজ (ওরফে শাহ মোহাম্মদ নেওয়াজ, ওরফে শাহ এম নেওয়াজ, ওরফে মোহাম্মদ এস নেওয়াজ) অভিযোগ করেন যে, তার ব্যবসার সাবেক অংশীদার পার্থ গুপ্ত তাকে জীবন নাশের (হত্যা) হুমকি দিয়ে তার ফোনে লিখিত বার্তা পাঠিয়েছেন। এর দুই মাস আগে ২৯ আগষ্ট জ্যাকসন হাইটসের ৭৬-৩৭ স্ট্রিটের ওপর বাংলাদেশিদের আয়োজনে অনুষ্ঠিত একটি পথমেলায় তার গোল্ডেন এজ হোম কেয়ারের সাবেক অংশীদার ব্যবসায়ী ও জনপ্রিয় যন্ত্রশিল্পী পার্থ গুপ্তসহ কয়েকজন মিলে সন্ধ্যা ৬টা/সাড়ে ৬টার দিকে তাকে মারধর করেন। এ সময় তার জীবন নাশের উদ্দেশ্যে তারা বিপজ্জনক যন্ত্র (পিস্তল, রিভলভার, রাইফেল, শর্টগান কিংবা মেশিনগান) প্রদর্শন করেন (মামলার ডকেট নম্বর-‘সিআর-০২০৫৬০-২১ কিউএন’)। তার জীবনের নিরাপত্তার জন্য তিনি পুলিশের সাহায্য চান। তার অভিযোগের সূত্র ধরে গত বছর ৪ অক্টোবর সন্ধ্যায় জ্যাকসন হাইটসের নর্দার্ন ব্লুভার্ড-১১৫ এলাকার পুলিশ কর্মকর্তা টেলর স্কালা পার্থকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ ষ্টেশনে যাবার জন্য আহবান জানান। ফোন পেয়ে পার্থ গুপ্ত স্বেচ্ছায় পুলিশ ষ্টেশনে গেলে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে রাত পর্যন্ত নর্দার্ন ব্লুভার্ড-১১৫ পুলিশ ষ্টেশনে তাকে আটক রাখেন।

আরও পড়ুন: নিউ ইয়র্কে ব্যবসায়ী শাহ নেওয়াজের অনৈতিক কর্মকান্ডে প্রবাসীরা হতবাক!
পরদিন ৫ অক্টোবর পার্থ গুপ্তকে নিকটস্থ ফৌজদারি আদালতে পাঠালে বিজ্ঞ বিচারক পার্থ গুপ্তের জামিন আবেদন মঞ্জুর করেন। মামলার বাদী শাহনাওয়াজ কাছ থেকে দূরত্ব বজায় রাখারও নির্দেশ দেন আদালত।
নিউ ইয়র্কের হোম কেয়ার ও ইন্সুরেন্স ব্যবসায়ী শাহনাওয়াজ তার দায়ের করা অভিযোগের সত্যতা প্রমাণে ব্যর্থ হওয়ায় নিউ ইয়র্কের কুইন্স কাউন্টি ফৌজদারি আদালতের বিজ্ঞ বিচারক মেরি এল বেজারানো সাজানো ও পরিকল্পিত উক্ত মামলাটি (সিআর-০২০৫৬০-২১ কিউএন) খারিজ করেন। একই সাথে ব্যবসায়ী ও যন্ত্রশিল্পী পার্থ গুপ্তকে নির্দোষ বলে উল্লেখ করেন আদালত।

বিপি।এসএম