ফ্লোরিডায় ‘আলবার্তো’র আঘাতে তিন অঙ্গরাজ্যে জরুরি অবস্থা

বাংলাপ্রেস ডেস্ক
২৯ মে, ২০১৮

নিউ ইয়র্ক প্রতিনিধি: আটলান্টিকে সৃষ্ট মৌসুমের প্রথম ঝড় ‘আলবার্তো’ ফ্লোরিডায় আঘাত হেনেছে। অঙ্গরাজ্যের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় উপকূলে আঘাত হানার সময় বাতাসের গতিবেগ ছিলো ঘণ্টায় ৪৫ মাইল।
মার্কিন আবহাওয়াবিদরা জানিয়েছেন, ফ্লোরিডায় আঘাতের পর ঝড়টি দুর্বল হয়ে পড়েছে। ঘণ্টায় ১২ মাইল বেগে এটি উত্তর দিকে সরে যাচ্ছে। একইসঙ্গে বাতাসের গতিবেগ নেমেছে ৩৫ মাইল।
ন্যাশনাল হারিকেন সেন্টার (এএইচসি) থেকে জানানো হয়েছে, আগামী কয়েকদিন বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকবে। তবে এখন পর্যন্ত কোনো প্রাণহানির খবর পাওয়া যায়নি। এদিকে ঝড়ের প্রভাবে প্রচণ্ড বৃষ্টিপাতে ফ্লোরিডার বিভিন্ন এলাকায় এরইমধ্যে বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। কয়েক হাজার মানুষকে নিরাপদে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।
আলবার্তো’র পর আটলান্টিকে যেসব ঝড় তৈরি হবে সেগুলো হচ্ছে- বারিল, ক্রিস, ডেব্বি, আরনেস্টো, ফ্লোরেন্স, গর্ডন, হেলেন, আইজ্যাক, জয়েস, ক্রির্ক, লেসলি, মাইকেল, নাদাইন, অস্কার, প্যাটি, রাফায়েল, সারা, টনি, ভ্যালিরি, উইলিয়াম। যার কয়েকটি হবে প্রলয়ঙ্করী।                                এদিকে এ ঝড়ের কারণে মিসিসিপি/আলাবামা সীমান্ত থেকে ফ্লোরিডার অকিলা নদী পর্যন্ত ক্রান্তীয় ঝড়ের সতর্কতা জারি করা হয়েছে। ঝড়ের কারণে পূর্ব লুইজিয়ানা থেকে মিসিসিপি, আলাবামা, পশ্চিম টেনেসি ও পশ্চিম ফ্লোরিডার প্যানহেন্ডেল পর্যন্ত এলাকাজুড়ে ১৩ থেকে ২৫ সেন্টিমিটার, কোথাও কোথাও সর্বোচ্চ ৩৮ সেন্টিমিটার পর্যন্ত বৃষ্টিপাত হতে পারে বলেও সতর্ক করেছে এনডব্লিউএস।
স্থানীয় ও রাজ্য সরকারের বিভিন্ন কর্তৃপক্ষকে ঝড় পরবর্তী পরিস্থিতি মোকাবেলায় পর্যাপ্ত সম্পদ ও সময় দিতে ৬৭টি কাউন্টির সবগুলোতে জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে বলে এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন ফ্লোরিডার গভর্নর রিক স্কট।
“উত্তর দিকে ধেয়ে আসা গ্রীষ্মমণ্ডলীয় ঝড় আলবার্টোকে ধারাবাহিকভাবে পর্যবেক্ষণ করছি আমরা। পরিবারগুলোকে নিরাপদ রাখতে এবং ঝড় যে তুমুল বর্ষণ ও ব্যাপক বন্যা নিয়ে আসছে তার জন্য প্রস্তুত হতে ফ্লোরিডার সবগুলো কাউন্টিতে প্রয়োজনীয় উপকরণ মজুদ রাখা খুব গুরুত্বপূর্ণ,” বলেছেন তিনি।
ঝড়ের কারণে নিচু এলাকা ও উপকূলে বন্যার যে হুমকি রয়েছে তার উল্লেখ করে মিসিসিপি ও আলাবামায়ও জরুরি অবস্থা জারি করেছেন অঙ্গরাজ্যদুটির গভর্নর।
স্থানীয় সময় রবিবার সকাল ৬টা থেকে ৪০টি কাউন্টিতে জরুরি অবস্থা জারি থাকবে বলে জানিয়েছেন আলাবামার গভর্নর কে আইভি।
“আপনি এখানকার বাসিন্দাই হন, কিংবা বেড়াতেই আসুন, মৌসুমী এ ঝড় সম্পর্কে সবসময় খোঁজখবর রাখতে হবে আপনাকে। আমি সবাইকে অনুরোধ জানাচ্ছি আপনার পরিবারের জন্য চূড়ান্ত জরুরি পরিকল্পনা করে রাখুন, বিশেষ করে যারা ভ্রাম্যমাণ বাড়ি কিংবা নিচু এলাকায় থাকবেন,” বলেছেন মিসিসিপির গভর্নর ফিল ব্রায়ান্ট।
স্থানীয় সময় শনিবার সন্ধ্যায় ঝড়টি কিউবার পশ্চিম প্রান্ত থেকে ১৫৩ কিলোমিটার উত্তরে এবং ফ্লোরিডার কি ওয়েস্ট থেকে ১১৩ কিলোমিটার পশ্চিমে ছিল বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল হারিকেন সেন্টার (এনএইচসি)।
শুক্রবার থেকে আলবার্টোর পথ কিছুটা পূর্বদিকে সরে যাওয়ায় মেক্সিকো উপকূলের তেল খনি এলাকার ঝুঁকি কিছুটা কমেছে বলে জানিয়েছে রয়টার্স। মেক্সিকো উপসাগরের তেলসমৃদ্ধ এলাকার উপকূল থেকে শুক্রবার রয়েল ডাচ শেল পিএলসি ও এক্সন মোবিল তাদের বেশ কিছু কর্মীকে সরিয়ে নিয়েছে।