যুক্তরাষ্ট্রে মধ্যবর্তী নির্বাচন: ডেমোক্র্যাটিক ও রিপাবলিকানের মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই

বাংলাপ্রেস ডেস্ক
৯ নভেম্বর, ২০২২

মিনারা হেলেন: যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যবর্তী নির্বাচনে প্রতিনিধি পরিষদ ও সিনেটের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে ডেমোক্র্যাটিক ও রিপাবলিকান দলের মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই চলছে। বুধবার ফল ঘোষণা শুরু হওয়ার পর থেকে কোন দল কংগ্রেসের নিয়ন্ত্রণ পাচ্ছে তা স্পষ্ট হচ্ছে না। রিপাবলিকানরা লাল ঢেউয়ের প্রত্যাশা করলেও ভোটের ফলে তেমন ইঙ্গিত পাওয়া যায়নি। বরং তুলনামূলকভাবে ডেমোক্র্যাটিক দল ভোটে তাদের শক্তি প্রদর্শন করছে।
স্থানীয় সময় বুধবার সকাল ৬টা পর্যন্ত সিনেটের ১০০ আসনের মধ্যে ৪৮টি ডেমোক্র্যাটিক এবং ৪৭টি রিপাবলিকানদের দখলে গেছে। সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেতে ৫০টি আসন প্রয়োজন হয়। তবে এবার নির্বাচন হচ্ছে ১০০টির মধ্যে ৩৫টি সিনেট আসনে।
প্রতিনিধি পরিষদের ৪৩৫টি আসনের মধ্যে ডেমোক্র্যাটিকরা জয় পেয়েছে ১৭৩টি আসনে এবং রিপাবলিকানরা ১৯৮টি আসনে। সংখ্যাগরিষ্ঠতার জন্য প্রয়োজন ২১৮টি আসন।
বুধবার সকাল ৬টা পর্যন্ত ঘোষিত ফলাফলের মধ্যে ডেমোক্র্যাটিকদের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ জয় হলো পেনসিলভানিয়ায়। গুরুত্বপূর্ণ এই সিনেট আসনে রিপাবলিকান প্রার্থীকে হারিয়েছেন দলটির নেতা জন ফেটারম্যান।
ভোটের ফল ঘোষণা যত হচ্ছে হোয়াইট হাউজের মনোভাব চাঙ্গা হচ্ছে। কারণ ভোটের পূর্বাভাসের তুলনায় ডেমোক্র্যাটরা অনেক ভালো করছে। টুইটারে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন হাস্যোজ্জ্বল ছবি প্রকাশ করেছেন। নির্বাচনে জয়ী ডেমোক্র্যাটিক নেতাদের তিনি ফোনে অভিনন্দন জানিয়েছেন।
প্রতিনিধি পরিষদের নিয়ন্ত্রণ রিপাবলিকানদের হাতে যেতে পারে। দলটি আশা করছে এর ফলে তারা বাইডেনের অগ্রাধিকারমূলক প্রকল্পে বাধা দিতে সক্ষম হবে তারা।
কংগ্রেসের নিয়ন্ত্রণ যদি রিপাবলিকানরা নিতে পারে তাহলে তারা চাইলে ইউক্রেনকে দেওয়া মার্কিন সহযোগিতা আটকে দিতে পারবে। কিন্তু বিশ্লেষকরা বলছেন, একেবারে আটকে হয়ত দেবে না রিপাবলিকানরা। হয়ত সহযোগিতার প্রবাহ হবে একটু ধীরগতির।
ইকুইটি ক্যাপিটলের প্রধান ম্যাক্রো অর্থনীতিবিদ স্টুয়ার্ট কোল বলছেন, প্রেসিডেন্ট, কংগ্রেস ও রিপাবলিকান নিয়ন্ত্রিত প্রতিনিধি পরিষদ কর বৃদ্ধি, সরকারের ব্যয় সীমিত করে দিতে পারে। যার হলো মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে সুদের হার খুব বেশি বাড়বে না।
প্রতিনিধি পরিষদের রিপাবলিকান নেতা কেভিন ম্যাককার্থি আশা করছেন তিনি পরিষদের স্পিকারের দায়িত্ব পেতে পারেন। তিনি বলেছেন, কাল যখন আপনাদের ঘুম ভাঙবে আমরা হব সংখ্যাগরিষ্ঠ এবং ন্যান্সি পেলোসি হবেন সংখ্যালঘু।
মধ্যবর্তী নির্বাচনের ভোট গ্রহণ শেষে অনেক রাজ্যে ফলাফলও প্রকাশিত হয়েছে। তবে কোনো কোনো রাজ্যে এখনো ভোট গণনা চলছে। প্রাথমিক ফলাফলে দেখা যাচ্ছে, রিপাবলিকানরা বেশ এগিয়ে রয়েছে। এই ধারা অব্যাহত থাকলে বলা যায়, প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বেশ সমস্যায় পড়তে যাচ্ছেন। অন্য দিকে সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প পরবর্তী নির্বাচনে প্রেসিডেন্ট পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার ঘোষণা দিতে পারেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।
মধ্যবর্তী নির্বাচনে কংগ্রেসের উচ্চকক্ষ সিনেটে ১০০ আসনের মধ্যে প্রাথমিক ফলাফলে ক্ষমতাসীন ডেমোক্রেটিক পার্টি ও সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের রিপাবলিকান পার্টি ৪৮টি করে আসন পেয়েছে।
কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদে এগিয়ে আছে রিপাবলিকানরা। প্রতিনিধি পরিষদের ৪৩৫ আসনের মধ্যে এখন পর্যন্ত প্রাথমিক গণনায় রিপাবলিকানরা পেয়েছেন ১৯৮ আসন ও ডেমোক্রেটরা পেয়েছেন ১৭৮ আসন। নিম্নকক্ষে যেকোনো দলকে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেতে ২১৮ আসন পেতে হবে।
রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা মনে করছেন, মধ্যবর্তী নির্বাচনে ট্রাম্পের রিপাবলিকানরা জয়ী হলে বাইডেন প্রশাসনকে ২০২৪ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগ পর্যন্ত প্রতিটি মুহূর্তে প্রতিটি কাজে বিরোধিতায় পড়তে হবে।
এর আগে রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছিল, রিপাবলিকানরা বিজয়ী হলে রুশ আগ্রাসনের শিকার ইউক্রেনে মার্কিন সামরিক ও অর্থনৈতিক সহায়তা বন্ধ হয়ে যেতে পারে।
প্রাথমিক ফলাফলে দেখা যাচ্ছে, রিপাবলিকানরা বেশ এগিয়ে রয়েছে। এই ধারা অব্যাহত থাকলে বলা যায়, প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বেশ সমস্যায় পড়তে যাচ্ছেন। অন্য দিকে সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প পরবর্তী নির্বাচনে প্রেসিডেন্ট পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার ঘোষণা দিতে পারেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।
এডিসন রিসার্চের সমীক্ষঅয় বলা হয়, মুদ্রাস্ফীতি ও অপরাধ দমনে ভোটাররা ডেমোক্র্যাটদের চেয়ে রিপাবলিকানদের ওপর ভরসা রাখছে অনেক বেশি। অবশ্য গর্ভপাতের অধিকার প্রশ্নে ডেমোক্র্যাটরা বেশি সমর্থন পাচ্ছে।
যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসের উচ্চকক্ষ সিনেটের ১০০টির মধ্যে ৩৫টি এবং নিম্নকক্ষ হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভসের ৪৩৫টি সাধারণ আসনের সবকটিতেই ভোট হচ্ছে এবার। সেই সঙ্গে হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভসের ‘ভোটদানের ক্ষমতাহীন’ ৬টি আসনের মধ্যে ৫টি ও ৩৬টি রাজ্য ও ৩টি টেরিটরির গভর্নর নির্বাচন হবে।
মধ্যবর্তী নির্বাচনের প্রভাব মার্কিনিদের দৈনন্দিন জীবনের ওপরও নেহাতই কম নয়। বিশ্লেষকরা বলছেন, কংগ্রেসের যেকোনো পরিবর্তন সরাসরি মার্কিনিদের দৈনন্দিন জীবনে কীভাবে প্রভাব ফেলতে পারে, তার বড় উদাহরণ হতে পারে গর্ভপাত।
গত জুনে যুক্তরাষ্ট্রের সুপ্রিম কোর্ট সাংবিধানিকভাবে সুরক্ষিত গর্ভপাতের অধিকার আইন বাতিল করেন। মধ্যবর্তী নির্বাচনে কংগ্রেসের নিয়ন্ত্রণ হাতে এলে এ ইস্যুতে নতুন আইনের প্রস্তাব করবে বলে জানিয়ে রেখেছে দুই দলই।
যুক্তরাষ্ট্রের রাজনৈতিক প্রথা অনুযায়ী, প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ২ বছর পর অনুষ্ঠিত হয় কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভস (প্রতিনিধি পরিষদ) ও উচ্চকক্ষ সিনেটের একাংশ আসনের নির্বাচন। সেই প্রথা অনুযায়ী মঙ্গলবার প্রতিনিধি পরিষদের ৪৩৫টি আসন ও সিনেটের ৩৫টি আসনে ভোট অনুষ্ঠিত হয়েছে।

ট্রাম্প ১৫ নভেম্বর বড় ধরনের ঘোষণা দেবেন
সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ওহাইও-এর এক রাজনৈতিক সমাবেশে নিজ সমর্থকদের উদ্দেশ্যে বলেন, ১৫ নভেম্বর ফ্লোরিডায় তার মার-এ-লাগোর বাসভবনে তিনি ‘খুব বড় বিবৃতি‘ দেবেন।
ট্রাম্প বলেন, আমি মঙ্গলবার ফ্লোরিডার মার-এ-লাগোর পাম বিচে ১৫ নভেম্বর একটি খুব বড় ধরণের ঘোষণা দিতে যাচ্ছি।
সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বিস্তারিত না জানিয়ে বলেন, তিনি সমালোচনামূলক হওয়া সত্ত্বেও আগামীকালের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ নির্বাচন থেকে বিরত থাকতে চান না। খবর বার্তা সংস্থা তাসের।
এর আগে প্রতিবেদনসমূহে বলা হয় যে, ট্রাম্প মধ্যবর্তী কংগ্রেস নির্বাচনের পরে ২০২৪ সালে প্রেসিডেন্ট পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার পরিকল্পনা ঘোষণা করবেন বলে আশা করা হচ্ছে।
মার্কিন প্রতিনিধি পরিষদের ৪৩৫ সদস্য ও এক-তৃতীয়াংশ সিনেটর নির্বাচন করতে ৮ নভেম্বর মধ্যবর্তী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।
বেশ কয়েকটি নির্বাচনী পূর্বাভাস অনুসারে, রিপাবলিকান পার্টি মার্কিন কংগ্রেসের উভয় কক্ষে তার প্রতিনিধিত্ব বাড়াতে পারে, যা বর্তমান গণতান্ত্রিক প্রশাসনের কিছু উদ্যোগকে বাধা দেয়ার সুযোগ করে দেবে।

বিপি।এসএম