রাজশাহীতে তৃতীয় লিঙ্গের জনগোষ্ঠীর শোরুম ‘উত্তরণ কারুপল্লী’র উদ্বোধন

বাংলাপ্রেস ডেস্ক
৪ নভেম্বর, ২০২২

মাসুদ রানা রাব্বানী, রাজশাহী: রাজশাহী মহানগরীতে তৃতীয় লিঙ্গের জনগোষ্ঠী দ্বারা পরিচালিত হস্ত ও কারুশিল্পের একটি শোরুমের উদ্বোধন করা হয়েছে।

শুক্রবার (৪ নভেম্বর) তৃতীয় লিঙ্গের জনগোষ্ঠীকে সমাজের মূলধারায় ফিরিয়ে আনতে কাশিয়াডাঙ্গা থানার মোল্লাপাড়া মোড়ে এ শোরুমের উদ্বোধন করা হয়।

উন্নয়নের মূলস্রোতে সম্পৃক্ত হয়ে স্বাভাবিক জীবন চায় রাজশাহী’র তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ। প্রত্যেক মানুষের যেমন অধিকার স্বাভাবিক জীবন ও সামাজিক মর্যাদা। তেমনি তৃতীয় লিঙ্গের জনগোষ্ঠীকে কর্মমূখী পরিবেশে সম্পৃক্ত করতে নেয়া হয়েছে নানা উদ্যোগ।

এমন এক উদ্যোগের অংশ হিসেবে রাজশাহী মহানগরীর কাশিয়াডাঙ্গা থানার মোল্লাপাড়া বড় মসজিদের পাশে দারুসা রোডে উত্তরণ ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে তৃতীয় লিঙ্গের জনগোষ্ঠীর ব্যবসা প্রতিষ্ঠান উত্তরণ কারুপল্লীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন এবং হাবিবুর রহমান, বিপিএম (বার), পিপিএম (বার), অতিরিক্ত আইজিপি ট্যুরিষ্ট পুলিশ উপস্থিত থেকে শো-রুম “উত্তরণ কারুপল্লী”র উদ্বোধন করেন।
এসময় উপস্থিত ছিলেন আরএমপি’র পুলিশ কমিশনার মোঃ আবু কালাম সিদ্দিক ও রাজশাহী রেঞ্জের ডিআইজি মোঃ আব্দুল বাতেন বিপিএম, পিপিএম, রাজশাহী।

মেয়র তাঁর বক্তব্যে বলেন, তৃতীয় লিঙ্গের জনগোষ্ঠীকে মূলস্রোতে আনতে সরকার কাজ করে যাচ্ছে। বিভিন্ন দপ্তরে তাদেরকে কাজে লাগানো হচ্ছে। তৃতীয় লিঙ্গের জনগোষ্ঠীকেও নিজেদের জীবনমান উন্নয়নে এগিয়ে আসতে হবে। তবেই তারা সমাজের সম্পদে পরিণত হবে।

অতিরিক্ত আইজিপি বলেন, তৃতীয় লিঙ্গের জনগোষ্ঠীরা সমাজে অবহেলিত। স্বাভাবিক কর্মসংস্থান ও আয়-রোজগারের সুযোগ না থাকায় জীবিকার প্রয়োজনে কিছু নির্দিষ্ট উপায়ে তারা জীবিকা নির্বাহ করেন, যা ঝুঁকিপূর্ণ এবং অনিশ্চয়তায় ঘেরা। একইসঙ্গে জীবিকা নির্বাহের এই উপায়সমূহ সমাজে বিতর্কিত। তৃতীয় লিঙ্গের জনগোষ্ঠী সমাজের বোঝা নয় তারাও দেশের সম্পদ। স্বাভাবিক পরিবেশ পেলে তারাও দেশের উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালণ করতে পারে। তাদের পৃষ্টপোষকতায় সরকারি-বেসরকারি-সহ সকল এগিয়ে আসতে হবে। তবেই তৃতীয় লিঙ্গে জনগোষ্ঠীকে দেশের সম্পদে পরিণত করা যাবে।

উল্লেখ্য যে, উত্তরণ ফাউন্ডেশনের অন্যতম পৃষ্ঠপোষক টুরিস্ট পুলিশের অতিরিক্ত আইজিপি হাবিবুর রহমান, বিপিএম (বার), পিপিএম (বার)। এই সংগঠন মূলত বাংলাদেশের তৃতীয় লিঙ্গের জনগোষ্ঠী, বেদে সম্প্রদায় এবং যৌনকর্মীদের জীবনমান উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন আরএমপি’র ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, দিনের আলো হিজড়া সংঘের সভাপতি মোহনা-সহ তৃতীয় লিঙ্গের জনগোষ্ঠী।

বিপি>আর এল